বাহরাইন কাজের ভিসা ২০২৩ | বাহরাইন যেতে কত টাকা লাগে | বাহরাইন ভিসা কবে খুলবে |

বাহরাইন কাজের ভিসা ২০২৩ | বাহরাইন যেতে কত টাকা লাগে | বাহরাইন ভিসা কবে খুলবে |


বাহরাইন কাজের ভিসা ২০২৩ সম্পর্কে আজকের এই কনটেন্টে আমরা আপনাদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করব। এখান থেকে বাহরাইন সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। যেমন, বাহরাইন কাজের ভিসা। বাহরাইন যেতে কত টাকা লাগে। বাহরাইন এ কাজের বেতন কত। বাহরাইন কাজের চাহিদা কেমন। বাহরাইন যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য আমাদের এই কনটেন্ট থেকে আপনারা পেয়ে যাবেন। চলুন বাহরাইন সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে আসি। 

বাহরাইন হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের একটি দ্বীপ রাষ্ট্র। বাহরাইন এ ৩৬ টি দ্বীপ রয়েছে পশ্চিম অংশে বাহরাইন এর পাশে কাতার, সৌদি আরব রয়েছে। বাহুরাইন দেশটির বৃহত্তম শহর ও রাজধানী মানামা অবস্থিত। তথ্য মতে বাহরাইন ৫,০০০ বছর পূর্বে একটি বাণিজ্য কেন্দ্র ছিল। বাহরাইন এ অর্থনীতিতে সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে পেট্রোলিয়াম উৎপাদন ও প্রক্রিয়াকরণ ও রিফাইলিং এর ওপর। এখান থেকে বাহরাইন অনেক পরিমাণ অর্থ উপার্জন করে থাকেন প্রতিবছর। এদেশে অনেক বেশি শ্রমিক দেখা যায় অন্য দেশের।

যে কারণে বাহরাইন এ শ্রম বাজারে প্রায় ৫ ভাগের ৩ ভাগ শ্রমিক দেখা যায় বিদেশী বা বাইরের দেশের। এখানে শুধু কাজ করতেই বাইরের দেশ থেকে মানুষ আসে না এখানে অনেক পর্যটন খাত রয়েছে যে কারণে অনেকেই টুরিস্ট ভিসা নিয়ে এখানে ঘুরতে এসে থাকেন। বাহরাইনের মাথাপিছু আয় অনেক বেশি মাথাপিছু আয় প্রায় ৫১ হাজার ৯৫৬ মার্কিন ডলার তবে বর্তমান সময়ে তা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।

বাহরাইন কাজের ভিসা ২০২৩

বাহরাইন কাজের ভিসা নিয়ে অনেকেই বাংলাদেশ থেকে বাহরাইন যেতে চান। আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে ২০২৩ সালের বাহরাইন ভিসা নিয়ে আলোচনা করব। বাহরাইন এর মাথাপিছু আয় অনেক বেশি প্রায় ৫১,৬৫৬ মার্কিন ডলার বা তারও বেশি। বাহরাইন এ বিদেশী শ্রমিক অনেক বেশি দেখা গিয়ে থাকে যেমন পাঁচ ভাগের ৩ ভাগে বিদেশি শ্রমিক। বাংলাদেশের ও অনেক শ্রমিক রয়েছে যারা বাহরাইনে বিভিন্ন রকমের কাজ করে থাকেন।

বাহরাইন যেতে কত টাকা লাগে

বাহরাইন যেতে টাকা খরচ হয় প্রায় চার থেকে ছয় লক্ষ টাকা। আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে বাহরাইন যেতে চান তাহলে আপনার খরচ হবে চার থেকে ছয় লক্ষ টাকা। এজেন্সি ভেবে কিছু টাকা কম বা বেশি হতে পারে। আপনি যদি দালালের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে বাহরাইন যেতে চান বা অন্য দেশ থেকে বাহরাইন যেতে চান তাহলে আপনার খরচ আরো বেশি বৃদ্ধি পেয়ে যাবে। সে ক্ষেত্রে আপনার খরচ ৮ লক্ষ পর্যন্ত হতে পারে।


বাহরাইন কাজের বেতন কত

বাহরাইনে কাজ কাজ করে একজন শ্রমিক প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা। কাজের উপর ভিত্তি করে বেতন কমবেশি ও হতে পারে সকল কাজের জন্য একই রকম বেতন দেওয়া হয় না। কনস্ট্রাকশন এর কাজ আপনি যদি বাহরাইন গিয়ে নিয়মিত করেন তাহলে আপনি প্রতি মাসে 50 থেকে ৬০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন।

বাহরাইন কাজের চাহিদা কেমন

বাহরাইন এ কাজের চাহিদা অনেক বেশি রয়েছে আগের তুলনায়। বর্তমান সময়ে যারা বাহরাইন কাজ করতে যাবে তারা অনেক রকম কাজ পেয়ে যাবেন খুব সহজেই। বিভিন্ন দেশ থেকে বাহরাইনে গিয়ে অনেকেই অনেক রকম কাজ করে থাকেন। আপনি চাইলে ও বাংলাদেশ থেকে বা অন্যান্য দেশ থেকে বাহরাইন গিয়ে কাজ করতে পারবেন। বাহরাইনে আপনি কাজ করে প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার বা তারও বেশি টাকা।

বাহরাইন ভিসা কবে খুলবে

বাহরাইন ভিসা কবে খুলবে তা এখনো নির্দিষ্টভাবে জানা যায় নি। তবে সরকার চেষ্টা করেছে বাহরাইন ভিসা যেন খুব দ্রুত খুলে যায় সেজন্য। বাহরাইন বিদেশী শ্রমিকদের চাহিদা সবথেকে বেশি। বাহরাইনে পাঁচ ভাগের মধ্যে তিনভাগে বিদেশে শ্রমিক রয়েছে। যে কারণে অনেকেই বাংলাদেশ থেকে বাহরাইন যেতে বেশি আগ্রহ প্রকাশ করে থাকেন। সেখানে কেমন কোন ঝামেলা ও থাকেনা অনেক রকম সুযোগ সুবিধা ও পেয়ে যান। বর্তমানে বাহরাইন ভিসা চালু নেই


বাহরাইন যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন

বাহরাইন যেতে হলে আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। আমরা সকলেই জানি যে কোন কাজ করার ক্ষেত্রে আমাদের ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হয় তেমনি ভাবে বাহরাইন যেতে হলেও আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে যেগুলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সকল ডকুমেন্টস গুলো ছাড়া আপনি বাহরাইন কাজ বা অন্যান্য কোন কিছু করতে যেতে পারবেন না। বাহরাইন যেতে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হয় তার নিচে উল্লেখ করা হলো।
  • প্রথমত আপনার একটি বৈধ পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে। পাসপোর্ট এর সর্বনিম্ন দুইটি ফাঁকা পৃষ্ঠা থাকতে হবে এবং ছয় মাস বা তার বেশি মেয়াদ থাকতে হবে।
  • এনআইডি কার্ড এর প্রয়োজন হবে।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট।
  • মেডিকেল রিপোর্ট।
  • করনার টিকা কার্ড।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।
  • আপনি যদি কোন কাজের বিষয়ে দক্ষ হয়ে থাকেন তার সার্টিফিকেট।
  • চেয়ারম্যান কর্তৃক সনদপত্র।

বাহরাইন এ কোন কোন কাজের চাহিদা বেশি

বাহরাইন এ অনেক রকম কাজ রয়েছে। যে সকল কাজগুলো বিভিন্ন দেশের শ্রমিকরা করে থাকেন। তেমনি হয়ে বাংলাদেশের ও অনেক শ্রমিক রয়েছে বাহরাইন এ। বাংলাদেশের শ্রমিকরা ও বিভিন্ন ধরনের কাজ করে থাকেন। যে সকল কাজগুলো চাহিদা বেশি বাহরাইন এ সেই সকল কাজগুলো নিচে উল্লেখ করা হলো।
  1. কনস্ট্রাকশন
  2. ক্লিনার
  3. হোটেল
  4. ইলেকট্রনিক্স
  5. মেকানিক্যাল
  6. ড্রাইভিং

বর্তমানে বাহরাইন এর অবস্থা কেমন

বর্তমানে বাহরাইনের অবস্থা আগের তুলনায় অনেক বেশি ভালো। আগের মত টাকা নিয়ে কাজ নিয়ে কোনরকম সমস্যা নেই। কাজ শেষে আপনি আপনার টাকা সঠিক সময়ে পেয়ে যাবেন। বিশেষ করে কাজের দিক থেকে যদি আমরা তুলনা করি তাহলে আগের তুলনায় অনেক বেশি কাজের চাহিদা রয়েছে। আগের তুলনায় প্রতি ঘন্টায় যে রেট ছিল কাজ করার জন্য সে রেটটি বৃদ্ধি করা হয়েছে। তাহলে আমরা বুঝতেই পারছি বাহরাইনে বর্তমান সময়ে শ্রমিকরা ভালো অবস্থায় রয়েছে।

বাহরাইন যাবার উপায়

বর্তমান সময়ে আপনারা বিভিন্ন রকম ভাবে বাহরাইন যেতে পারেন। বাহরাইনে আপনার কোন আত্মীয় থাকলে আপনি তাদের সুপারিশের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে বা বিভিন্ন দেশ থেকে বাহরাইন যেতে পারেন। অথবা আপনি এজেন্সির মাধ্যমে বা এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করে বাংলাদেশ থেকে বাহরাইন যেতে পারেন। বিভিন্ন রকম ক্যাটাগরি নিয়ে আপনি বাহরাইন যেতে পারবেন। অনলাইনের মাধ্যমে আপনারা ভিসা সংগ্রহ করে ও বাহরাইনে কাজ করতে অথবা টুরিস্ট ভিসা নিয়ে ঘুরতে যেতে পারেন।

তবে বর্তমান সময়ে আমরা দেখতে পাই যে বেশিরভাগ মানুষ যে কোন এজেন্সির মাধ্যমে বা এজেন্সির সাহায্য নিয়ে বাংলাদেশ থেকে অন্যান্য সকল দেশে যেয়ে থাকেন। তবে এজেন্সির মাধ্যমে যদি আপনি বাহরাইন যেতে চান তাহলে এজেন্সি সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানতে হবে এবং এজেন্সি সম্পর্কে সঠিকভাবে খোঁজ খবর নিয়ে তারপরে এজেন্সের মাধ্যমে আপনি বাহরাইনের উদ্দেশ্যে রওনা দিতে পারেন।


Next Post Previous Post
No Comment
Comment Here
comment url